বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০, ০৭:৫৭ পূর্বাহ্ন

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গণপরিবহন ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ

এবি.টিভি রিপোর্ট. ঢাকা
  • Update Time : শনিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২০
  • ৩৮ Time View

করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে  যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রাখতে সকল প্রকার গণপরিবহন বন্ধের সিদ্ধান্ত আগামী ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার রাজধানীর সংসদ ভবনে এলাকায় নিজের সরকারি বাসভবনে এক ভিডিও সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

কাদের বলেন, সরকার সাধারণ ছুটি আগামী ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করায় দেশব্যাপী চলমান গণপরিবহন বন্ধের সিদ্ধান্ত আগামী ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করা হলো।

‘পণ্যবাহী পরিবহন, খাদ্যদ্রব্য, জরুরিসেবা, পচনশীল দ্রব্য পরিবাহী, ওষুধ শিল্প, ত্রাণবাহী গাড়ি, গণমাধ্যম, কৃষি মৎসজাত পণ্য ও দুগ্ধজাত পণ্য পরিবহনে এই নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে।’

যারা পণ্যপরিবহনের মধ্যে যাত্রী বহন করছেন, তাদের বিষয়ে সতর্ক করে মন্ত্রী বলেন, আমরা অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে লক্ষ্য করছি, পণ্যবাহী পরিবহনে যাত্রী বহন করা যাবে না- এমন নিষেধাজ্ঞা অনেকে মানছেন না।

করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে অসহায় শ্রমজীবী ও হতদরিদ্রদের মাঝে ত্রাণ বিতরণে কোন ধরনের অনিয়ম সহ্য করা হবে না বলেও হুঁশিয়ারি দেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ত্রান বিতরণের নামে কোন রকম অনিয়ম সহ্য করা হবে না। খেটে খাওয়া মানুষের ত্রান ঘরে ঘরে গিয়ে পৌঁছে দিতে হবে। সমাজের বিত্তবান ও দলের নেতাকর্মীদের অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে চলমান প্রয়াস আরও জোরদার করতে হবে।

করোনা নামক এই অদৃশ্য শত্রুকে পরাজিত করতে সকল মতপার্থক্য ভুলে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সংস্কৃতিক, পেশাজীবি ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে ধৈর্য এবং সাহসিকতার সঙ্গে ঐক্যবদ্ধভাবে পরিস্থিতি মোকাবিলা করার আহ্বান জানান ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, একটি কুচক্রী মহল গুজব ছড়াচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

করোনা সংকটের মধ্যে পদ্ধা সেতুতে আরো একটি স্প্যান বসানোর অগ্রগতি তুলে ধরে সেতুমন্ত্রী বলেন, এই সংকটের মধ্যেও আমি জাতিকে শেখ হাসিনা সরকারের পক্ষ থেকে একটি সুখবর দিচ্ছি। এই প্রতিকূল অবস্থার মধ্যেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সর্বাধিক অগ্রাধিকার প্রকল্প পদ্মা সেতুতে ২০ এবং ২১ নম্বর পিলারের উপর ২৮তম স্প্যান স্থাপন করা হয়েছে।

‘এর ফলে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ সেতুর ৪ দশমিক ২ কিলোমিটার দৃশ্যমান হলো। আর বাকি রইলো ১৩টি স্পানের কাজ। প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যেও দেশি-বিদেশিসকল প্রকৌশলী, টেকনিশিয়ান শ্রমিক পরামর্শক যারা তাদের দায়িত্ব নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করে যাচ্ছেন, হাসিনার সরকারের পক্ষ থেকে আমি তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

মুজিববর্ষ